ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস হতে পারে ওরাল সেক্স থেকে!! - মায়া

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস হতে পারে ওরাল সেক্স থেকে!!

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস বা অন্যান্য আরও রোগ নারী যৌনাঙ্গে হতে পারে ওরাল সেক্স (যৌনক্রিয়ার ক্ষেত্রে মৌখিক স্পর্শ বা মুখমেহন) থেকে। যৌনাঙ্গে হলেও এটি কোন যৌনরোগ নয়।

সম্প্রতি প্লস বায়োলজি নামক গবেষণাপত্রে এমনটাই দাবী করছেন গবেষকরা।

বাংলাদেশের মত আর্থসামাজিক প্রক্ষাপটে নারীরা অনেক সময়ই নিজেদের যৌনস্বাস্থ্য নিয়ে অবহেলা করে কিংবা নিজেদের সমস্যার কথা খুলে বলতে সংকোচ বোধ করে। ফলে, নানাবিধ যৌনরোগ যা সঠিক সময়ে চিকিৎসা পেলে ভালো হয়ে যায় তা ভয়ঙ্কর রুপধারণ করে।

মায়ার ডাক্তারের পরামর্শে ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস বা বিভি সম্পর্কে জানতে বিস্তারিত পড়ুন।

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস কি?

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজাইনোসিস (BV) যোনির একটি সংক্রমণ। নারীর ভ্যাজাইনা বা যোনিতে সাধারণ যেসব ব্যাকটেরিয়া থাকে, সেখানে কোন ভারসাম্যের অভাব দেখা গেলে বিভি হতে পারে।

বিভি সাধারণত অন্য কোন স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি করে না। কিন্তু এটা সমস্যার কারণ হতে পারে, বিশেষ করে যখন আপনি গর্ভবতী হন অথবা গর্ভবতী হওয়ার চেষ্টা করেন।

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস এর উপসর্গসমূহ

প্রায়শই, বিভি আক্রান্ত মহিলাদের কোন লক্ষন থাকে না। কিন্তু কারও কারও নিম্নোক্ত উপসর্গ দেখা দেয়:

  • প্রস্রাব করার সময় জ্বালাপোড়া অনুভব
  • যৌনমিলনের পর আঁশটে গন্ধ প্রকট হওয়া
  • চুলকানি
  • পাতলা সাদা, ধূসর, অথবা সবুজাভ স্রাব

এটা ইস্ট ইনফেকশনের মত নয়। যা হলে ঘন গন্ধহীন সাদা স্রাব হয়।

কখন ডাক্তারের শরণাপন্ন হবেন

যেহেতু বিভি উপসর্গ অন্যান্য সংক্রমণের মত হয়, তাই কারণ খুঁজে বের করা জরুরী। দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিন যদি:

  • স্বাভাবিকের চেয়ে ভিন্ন যোনি স্রাব সঙ্গে দুর্গন্ধ বা জ্বর
  • একাধিক ব্যক্তির সাথে যৌন সম্পর্ক থাকলে
  • ইস্ট সংক্রমণের জন্য ঔষধ খেয়েও কাজ না হলে

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস এর কারণ

ল্যাকটোব্যাসিলাস নামক এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া আপনার যোনিকে অম্লীয় রাখে যাতে খারাপ ব্যাকটেরিয়া না জন্মায়। যদি আপনার ল্যাকটোব্যাসিলাসের মাত্রা কমে যায়, তাহলে খারাপ ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণে বি ভি হয়।

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস এর ঝুঁকি সমুহ

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস এর সাথে অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে:

  • আপনার BV থাকা অবস্থায় যৌনাঙ্গে হিস্টেরেকটমি বা অন্যান্য অস্ত্রোপচার হলে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে
  • অপরিপক্ব বা কম জন্ম ওজনের শিশু জন্মদান
  • যৌনসঙ্গীর দেহে যৌন সংক্রামক রোগ যেমন হারপিস, ক্লামাডিয়া,গনোরিয়া, অথবা এইচআইভি সংক্রমণ
  • ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন (আইভিএফ) মত ফার্টিলিটি চিকিৎসায় কম সাফল্য
  • পেলভিক ইনফ্লেমেটরি ডিজিজ (পিআইডি), আপনার জরায়ু, ফ্যালোপিয়ান টিউব, এবং ডিম্বাশয়ের সংক্রমণ

প্রতিকার

BV সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে, এই পদক্ষেপগুলি নিন:

  • বিকৃত যৌনভ্যাস যেমন- সেক্স টয়, একাধিক যৌন সম্পর্ক ইত্যাদি পরিত্যাগ করুন।
  • সঙ্গীর কোন যৌনরোগ আছে নাকি তা নিশ্চিত হন
  • যৌনমিলনে কনডম ব্যবহার করুন
  • যৌনাঙ্গ ধোয়ার জন্য খুব মাইল্ড সাবান বা শুধু পানি ব্যবহার করুন
  • পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন

চিকিৎসা

ব্যাকটেরিয়াল ভ্যাজিনোসিস চিকিৎসায় ডাক্তাররা মুখে খাওয়ার বিশেষ এক এন্টিবায়োটিক বা আক্রান্ত স্থানে লাগানর জন্য মলম বা জেল দিতে পারেন। সাধারণত, ৫-৭ দিন ঔষধ খেলেই এ রোগ সেরে যায়। তবে, এটি বারবার ফিরে আসতে পারে। সে ক্ষেত্রে, ঔষধ দীর্ঘমেয়াদী সেবনের প্রয়োজন হতে পারে।

সবশেষে , মায়াতে পরিচয় গোপন রেখেই নিঃসঙ্কোচে প্রশ্ন করে ডাক্তারের সেবা নিন। যৌনরোগ সম্পর্কে সচেতন হন এবং যে কোন সমস্যায় অ্যাপ ইন্সটল করে প্রশ্ন করুন।

Leave a Reply

Categories