রান্নার তেল এর মধ্যে কোনটি সবচেয়ে স্বাস্থ্যসম্মত ? - মায়া

রান্নার তেল এর মধ্যে কোনটি সবচেয়ে স্বাস্থ্যসম্মত ?

রান্নার তেল মানেই ফ্যাট এবং ক্যালরিতে ভরপুর কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন তেলের শরীরের উপর ভিন্ন ভিন্ন প্রতিক্রিয়া হতে পারে।

রান্নার তেল রান্নার প্রধান উপাদানগুলোর মধ্যে একটি। নানারকম তেল রয়েছে। যেমন- নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, সয়াবিন, অ্যাভোকাডো, ক্যানোলা ইত্যাদি।

কোনটি রান্নায় ব্যবহার করব বা কোনটি এড়িয়ে চলব? এবিষয়ে নানারকম ভ্রান্তধারণা সমাজে প্রচলিত রয়েছে।

অতিরিক্ত স্যাচুরেটেড চর্বি খাওয়া – মহিলাদের জন্য ২০গ্রাম এবং পুরুষদের জন্য প্রতিদিন ৩০গ্রামের অতিরিক্ত, যুক্তরাজ্যের এক নির্দেশিকা অনুযায়ী – আমাদের শরীরে কোলেস্টেরল উৎপাদন করে যা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

সকল ফ্যাট মলিকিউল গুলো ফ্যাটি এসিডের শিকল দিয়ে আবদ্ধ থাকে। শিকলগুলো হয় সিঙ্গল বন্ড (সম্পৃক্ত) বা ডাবল বন্ড (অসম্পৃক্ত) হয়।

সাধারণত তিন ধরণের ফ্যাটি এসিড পাওয়া যায়। যথাঃ ছোট, মাঝারি ও লম্বা শিকল। ছোট ও মাঝারি শিকলের ফ্যাটি এসিডগুলো রক্তের সাথে সহজে মিশে যায় এবং শক্তি উৎপাদন করে।

কিন্তু লম্বা শিকলের ফ্যাটি এসিডগুলো লিভারে গিয়ে রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

বিশেষজ্ঞরা কম স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং বেশি পরিমাণে অন্যান্য ফ্যাট সমৃদ্ধ রান্নার তেল বেছে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন।

ওমেগা -৩ এবং ওমেগা-৬ সমৃদ্ধ পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং মনোআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট এ কোলেস্টেরলের মাত্রা কম এবং এরা প্রয়োজনীয় ফ্যাটি এসিড ও অন্যান্য ভিটামিন সমৃদ্ধও বটে।

অনেক ভেজিটেবল অয়েল এ এগুলো বিদ্যমান তবে পরিমাণ নির্ভর করে গাছের ধরণ এবং তেল সংগ্রহের পদ্ধতির উপর।

অলিভ অয়েল, যা জলপাই পিষে বা পাল্প থেকে তেল পৃথক করে তৈরি করা হয়, উদ্ভিজ্জ তেলের মধ্যে সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর।

বোস্টনের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএইচ চ্যান স্কুল অফ পাবলিক হেলথের পুষ্টি বিভাগের গবেষক মার্তা গুয়াশ-ফেরে ২৪ বছরের বেশী সময় ধরে ১০০,০০০ এর ও বেশী মানুষের স্বাস্থ্য এবং খাদ্য বিশ্লেষণ করে গবেষণাপত্রে দেখিয়েছেন যে যারা বেশির ভাগ অলিভ অয়েল খায় তাদের হৃদরোগের ঝুঁকি ১৫% কম রয়েছে।

এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন ই সমৃদ্ধ, এবং গবেষকরা দেখেছেন যে অন্যান্য ধরনের অলিভ অয়েলের তুলনায় এলডিএল কোলেস্টেরল থেকে রক্ষা করে ভালোভাবে।

অন্যান্য ধরনের অলিভ অয়েল তেল নিষ্কাশন পর প্রক্রিয়াজাত করা হয়, যার ফলে তাদের কিছু পুষ্টি গুণ হারায়।

রান্নার জন্য সেরা অলিভ অয়েলের উপকারিতা

  • অক্সিডেটিভ স্ট্রেস বা শরীরে ফ্রি র‍্যাডিক্যাল ও এন্টি অক্সিডেন্টের অসামঞ্জস্য কমায়
  • কোষ এবং এলডিএল কোলেস্টেরলকে অক্সিডেটিভ ক্ষতি থেকে রক্ষা করে, যা কোষের বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে
  • হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়
  • ক্যান্সার ও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে
  • অন্ত্রের মাইক্রোবায়টার জন্য উপকারী

রান্নার তেলের বিষয়ে উল্লেখ্য যে,

অলিভ অয়েল স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হলেও কোন তেলই রান্নায় অতিরিক্ত ব্যবহার করা উচিৎ নয়।

আমাদের স্যাচুরেটেড ফ্যাটের পরিবর্তে অলিভ অয়েল বা যে কোন ভেজিটেবল অয়েল ব্যবহার করতে হবে তবে সীমিত পরিমাণে।

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যেকোন পরামর্শের জন্য মায়া অ্যাপটি ইন্সটল করে প্রশ্ন করুন।সুস্থ থাকুন।

তথ্যসূত্র,

বি বি সি

Leave a Reply

Categories