চশমা ঘোলা হয়ে যায় মাস্ক পরলে কি করতে পারি? - মায়া

চশমা ঘোলা হয়ে যায় মাস্ক পরলে কি করতে পারি?

চশমা ঘোলা হয়ে যাওয়া আমার মত চশমা পরা মানুষদের জন্য খুব সাধারণ একটি সমস্যা। তবে, কিছুদিন আগেও সমস্যাটি আমার কাছে এতটা ঝামেলার ছিল না। কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে মাস্কের যখন কোন বিকল্প নেই তখন থেকেই শুরু হল এই বিপত্তিটা। আমার মত যারা পাওয়ার গ্লাস পরেন না তারাও অনেকে নিরাপত্তার স্বার্থে গগলস পরছেন এবং আমার মতই ঝামেলায় পড়েছেন। চশমা ঘোলা হয়ে যাওয়ার ঝামেলা থেকে বাঁচতে প্রশ্ন করলাম মায়া এক্সপার্টকে। আমি এখন চশমা ঘোলা হওয়ার ঝামেলা থেকে মুক্ত। চলুন জেনে আসি কি পরামর্শ দিল আমাদের এক্সপার্ট-     

চশমা ঘোলা হওয়া সমস্যার সমাধান

পুরোপুরি সীল করুন

বেসিক সার্জিক্যাল মাস্কের উপরের প্রান্তে সিল তৈরির জন্য মাস্ক সঠিকভাবে ফিটিং হওয়াটা জরুরী। মাস্কের উপরের অংশ যেখানে ক্লিপ থাকে তা সেটি ভালোভাবে নাকের সাথে চেপে দিন। মাস্কের উপরের দিকের ফিতা বা রাবারটি টেনে কানের পিছনে নিচের অংশের তুলনায় বেশি শক্ত কিন্তু আরামদায়ক ভাবে বাঁধুন। এতে শ্বাস-প্রশ্বাস মাস্কের উপরের অংশ দিয়ে বের না হয়ে চাপের কারণে নিচের দিক দিয়ে বের হবে। ফলে, চশমা ঘোলা হবে না। 

সাবান পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন

সাবান পানি দিয়ে চশমা ধুয়ে বাতাসে শুকাতে দিন অথবা মাইক্রোফাইবারের কাপড় নিয়ে হালকা হাতে মুছে শুকিয়ে নিন। এর ফলে আপনার গ্লাসের উপর হালকা একটি আবরণ তৈরী হবে যা শ্বাস প্রশ্বাস আসার ফলে চশমার ঘোলা ভাবকে প্রতিহত করবে। 

গ্লাসের ক্ষতি এড়াতে বেবি শ্যাম্পু, শেভিং ক্রিম বা টুথপেস্ট দিয়ে চশমা পরিষ্কার করা থেকে বিরত থাকুন। 

সঠিকভাবে এবং ভালো ফিটিং এর মাস্ক পরুন 

মাস্ক কেনার সময় উপরের অংশ নোজ ক্লিপ আছে কিনা দেখে কিনুন। ঘরে মাস্ক তৈরী করলেও উপরের অংশে ক্লিপ, ফ্লোড করার মত পাইপ ইত্যাদি জাতীয় কিছু কাপড়ের মধ্যে ঢুকিয়ে দিন। ডাবল সাইডেড টেপ ব্যবহার করেও এ কাজটি করতে পারেন। উপরের অংশটি বদ্ধ থাকলে গরম শ্বাস নাকের উপরে উঠে চশমা ঘোলা করতে পারবে না। মাস্কের উপরের অংশ নোজ ক্লিপ দিয়ে বদ্ধ করে এর উপর চশমা পরুন দেখবেন চশমা ঘোলা হবার ঝামেলা থেকে আপনি মুক্ত থাকবেন। 

চশমা ফিটিং পরিবর্তন করুন 

আপনার চশমায় যদি নোজ প্যাড থাকে তবে এটির ফিটিং পরিবর্তন করতে গ্লাসের দূরত্ব নাক থেকে একটু বাড়িয়ে নিতে পারেন। এতে, গরম শ্বাস বের হয়ে গ্লাস ঘোলা করে ফেলার পরিবর্তে বাইরে বেরিয়ে যেতে পারে। তবে, আপনার যদি এক্সেস এর সমস্যা থাকে তবে এটি করা থেকে বিরত থাকুন। 

ডি- ফগিং স্প্রে ব্যবহার 

ফগিং প্রতিরোধক স্প্রে, ওয়াক্স বা জেল দিয়ে চশমা মুছে পরিধান করলে লেন্স ঘোলা হয় না। তবে, শুধুমাত্র চোখের লেন্স বা চশমা মোছার জন্য তৈরী পণ্যটিই ব্যবহার করুন।গাড়ির কাঁচ বা অন্যকাজের জন্য ব্যবহৃত পণ্য ব্যবহারে আপনার চশমা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। 

শ্বাস-প্রশ্বাস নিচের দিকে প্রবাহিত করুন  

ব্যাপারটি হাস্যকর হলেও খুব কাজের। শ্বাস নিচের দিকে ছাড়তে নিচের ঠোটের উপর উপরের ঠোট চেপে ধরুন। এবং শ্বাস ছাড়ুন। অনেকটা শিস দেওয়া বা বাঁশি বাজানোর সময় আমরা যেমনটা করে থাকি। 

এন্টি ফগিং লেন্স

এটি ফগিং প্রতিরোধক একধরণের লেন্স যা আপনি আপনার চশমায় ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে, মাস্ক পরা ছাড়াও অন্যান্য যেসব কারণে চশমা ঘোলা হয় সেসব সমস্যার থেকে আপনি মুক্তি পাবেন।    

অনেকগুলো উপায় তো বললাম এর থেকে আপনার জন্য যেটি সুবিধাজনক সেটি চেষ্টা করে দেখুন এবং আমাকে কমেন্ট করে জানান কোন পদ্ধতিটি আপনার কাজে এসেছে। এজাতীয় আরও কোন ছোটখাটো সমস্যা যা নিয়ে বড় ঝামেলায় আছেন, নির্দ্বিধায় মায়াতে প্রশ্ন করে ফেলুন । মায়া অ্যাপটি ইন্সটল করুন, ফ্রিতে ডাক্তার, মনোসামাজিক বিশেষজ্ঞ, লাইফইস্টাইল ও বিউটি এক্সপার্টদের পরামর্শ নিন।  

Leave a Reply