হাতের কাছেই সুপার ফুড! - মায়া

হাতের কাছেই সুপার ফুড!

পর্ব – ১ 

সুস্থ থাকার জন্য পুষ্টিকর খাবারের কোন বিকল্প নেই। প্রকৃতি প্রদত্ত সকল খাবারেই কোন না কোন পুষ্টি উপাদান রয়েছে। তবে, আর মধ্যেও কিছু খাবার রয়েছে যেগুলোর পুষ্টিগুণের কারণে এদের সুপারফুড বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। অর্থাৎ এগুলো পুষ্টিগুণে তুলনাহীন এবং সুস্বাদু ও বটে। মায়ার খাদ্য ও পুষ্টিবিদরা সব সময়ই সুস্থ থাকার জন্য আমাদের গ্রাহকদের পুষ্টিকর খাবার এবং সঠিক খাদ্যাভাসের প্রতি উৎসাহিত করে আসছেন। তাদের পরামর্শ হল আপনার খাবার প্লেটে রঙিন শাক সবজি, ফলমূল, ভাল মানের প্রোটিন এবং আঁশযুক্ত শর্করা রাখুন তবেই আপনার খাবারটি পরিপূর্ণ পুষ্টিকর হবে। নিম্নোক্ত খাবারগুলোকে আমরা সুপার ফুড বলতে পারি- 

ফলমূল 

এই মিষ্টি, সুস্বাদু ও পুষ্টিকর খাবারগুলি আপনার ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা খুব সহজ কারণ এগুলির কোনও প্রস্তুতির প্রয়োজন হয় না। 

  • আপেল: আপেলে রয়েছে ফাইবার, ভিটামিন সি এবং অসংখ্য অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। খাবারের মাঝখানে ক্ষুধার্থ হলে একটি আপেল খেলে অনেকক্ষণ পেট ভরা থাকে। 
  • অ্যাভোকাডো: বেশিরভাগ ফলের চেয়ে আলাদা কারণ এগুলিতে কার্বসের পরিবর্তে স্বাস্থ্যকর চর্বিযুক্ত থাকে। এগুলি কেবল ক্রিমি এবং সুস্বাদুই নয় এতে ফাইবার, পটাসিয়াম এবং ভিটামিন সি এর পরিমাণও বেশি । 
  • কলা: পটাসিয়ামের জন্য বিশ্বের সেরা উৎসগুলোর মধ্যে একটি। এগুলিতে ভিটামিন বি ৬ এবং ফাইবার রয়েছে এবং এটি খুব সহজলোভ্য,এবং সস্তাও বটে।
  • কমলালেবু: কমলালেবু তার ভিটামিন সি এর জন্য সুপরিচিত।এতে ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও বেশি পরিমাণে রয়েছে। 
  • অন্যান্য এছাড়াও আরও নানা রকম ফল রয়েছে যেগুলো নিঃসন্দেহে পুষ্টির খনি। যেমন- আম, কাঁঠাল, লেবু, বাঙ্গী, জলপাই, আনারস ইত্যাদি।   

ডিম

পৃথিবীর সবচেয়ে পুষ্টিকর খাবারগুলোর মধ্যে অন্যতম হল ডিম। 

মাংস 

প্রসেসড ছাড়া,হালকা মসলায় রান্না করা এবং ভালভাবে সিদ্ধ হওয়া মাংস আরেকটি পুষ্টিকর খাবার। 

  • গরুর মাংস চর্বিছাড়া গরুর মাংস পৃথিবীর সেরা প্রোটিনের উৎসগুলোর একটি এবং এতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন (লৌহ) রয়েছে। 
  • মুরগির বুকের মাংস এতে ফ্যাট এবং ক্যালোরি কম থাকে তবে প্রোটিনের পরিমাণ অত্যন্ত বেশি। এটি অনেক পুষ্টির এক দুর্দান্ত উৎস।

বাদাম এবং বীজ

চর্বি ও ক্যালোরি বেশি থাকা সত্ত্বেও বাদাম এবং বীজগুলো আপনার ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করতে পারে। 

এই খাবারগুলি ক্রাঞ্চি, অনেকক্ষণ ক্ষুধা নিবারণে সহায়তা করে এবং ম্যাগনেসিয়াম ও ভিটামিন ই সহ এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টিউপাদান এ ভরপুর যা অনেক লোক পর্যাপ্ত পরিমাণে পায় না। 

এগুলো খেতে প্রায় কোনও প্রস্তুতিরও প্রয়োজন নেই, তাই আপনার রুটিন ডায়েটে যুক্ত করা খুব সহজ।

  • কাঠ বাদাম(আমন্ড) ভিটামিন ই, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, ম্যাগনেসিয়াম এবং ফাইবারযুক্ত একটি জনপ্রিয় বাদাম। কতগুলো গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে বাদাম আপনার ওজন হ্রাস করতে এবং বিপাকীয় স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সহায়তা করে। 
  • চিয়া সিড চিয়া বীজ পৃথিবীর সবচেয়ে পুষ্টি বহুল  খাবারগুলির মধ্যে একটি। মাত্র এক আউন্স বা ২৮ গ্রাম পরিমাণ চিয়া সীড এ ১১ গ্রাম ফাইবার এবং ভাল পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, ম্যঙ্গানিজ,ক্যালসিয়াম এবং অন্যান্য উপাদান থাকে।ভাবা যায়!    
  • নারকেল  ফাইবার এবং শক্তিশালী ফ্যাটি অ্যাসিড দ্বারা ভরপুর যার নাম মিডিয়াম-চেইন ট্রাইগ্লিসারাইডস ।

সুস্থ থাকতে পুষ্টিকর খাদ্যের কোন বিকল্প নেই। আমার পরবর্তী পর্বের লেখায় আমি শাকসবজি, শস্য, তেল ইত্যাদির মধ্যে সুপার ফুড কোনগুলো তা নিয়ে আলোচনা করব। তাই মায়ার ওয়েবসাইটে চোখ রাখুন নিয়মিত। মায়াতে প্রশ্ন করে আমাদের খাদ্য ও পুষ্টি বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে জেনে নিন যে কোন পুষ্টি তথ্য। সুপার ফুডগুলো খাবার খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলুন কারণ সুপার ম্যানের মত রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে খাবারগুলোর জুড়ি মেলা ভার। সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন।

Leave a Reply