যানবাহনে চলা কালীন সময়ে সংক্রমণ থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখুন - মায়া

যানবাহনে চলা কালীন সময়ে সংক্রমণ থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখুন

গণ পরিবহণ, রাইডশেয়ার এবং ভাড়ায় চালিত যানবাহন এবং ব্যক্তিগত যানবাহন

জীবন ও জীবিকার তাগিদে ঘরে বসে থাকার জো হয়ত সবার নেই। বাইরে বের হতেই হচ্ছে আমাদের। যারা বের হন নি তাদেরও আজ বা কাল প্রয়োজনের তাগিদে বের হতেই হবে। তাহলে কিভাবে করোনা সংক্রমণ এড়িয়ে চলবেন? মায়া সব সময় আপনাদের সমস্যার সময়োপযোগী সমাধান দিয়ে সাহায্য করে আসছে। বাড়ি থেকে বের হয়ে গন্তব্যে পৌছানো পর্যন্ত কি কি বিষয়গুলো সতর্কতার সহিত পর্যবেক্ষণ করবেন তা নিচে তুলে ধরা হল- 

সবধরনের পরিবহনে উঠার পূর্বে করনীয় 

নিরাপদ হাত এবং হাঁচি কাশির শিষ্টাচার অনুশীলন করুন

  • বের হবার পূর্বে, আপনার হাত সাবান এবং পানি দিয়ে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ডের জন্য ধুয়ে ফেলুন বা কমপক্ষে ৬০% অ্যালকোহল যুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আপনি আপনার গন্তব্যে পৌঁছানোর পর কমপক্ষে ২০ সেকেন্ডের জন্য আবার আপনার হাত সাবান এবং পানি দিয়ে ধুয়ে নিন বা পৌঁছানোর সাথে সাথে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কমপক্ষে ৬০% অ্যালকোহল যুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • হাত না ধুয়ে আপনার চোখ, নাক এবং মুখ স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন।
  • হাঁচি, কাশির পূর্বেই টিস্যু দিয়ে বা কনুইয়ের ভাজে ঢেকে ফেলুন এবং টিস্যুটি ঢাকনাযুক্ত বিনে ফেলে দিন এবং এরপর আবারও পূর্বের ন্যায় হাত ধুয়ে ফেলুন। 

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন 

  • ভ্রমণের সময়, আপনার ঘরের সদস্য ব্যতীত সবার থেকে কমপক্ষে ৬ ফুট (২ মিটার) দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করুন – উদাহরণস্বরূপ, আপনি যখন কোনও বাস স্টেশনে অপেক্ষা করছেন বা ট্রেনে সিট নির্বাচন করছেন তখন।

মাস্ক ব্যবহার করুন 

  • শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব না হলেও মাস্ক পরিধান করতে ভুলবেন না। তবে এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে, নিম্নোক্ত কিছু মানুষের ক্ষেত্রে এটি এড়িয়ে চলুন-  
    • ২ বা তার নিচের বয়সী শিশু
    • শ্বাসকষ্টজনীত সমস্যা আছে যার বা অক্ষম ব্যক্তি 
    • যে ব্যক্তি অন্যের সাহায্য ব্যতীত জরুরী প্রয়োজনে মাস্ক খুলতে পারবেন না 
  • মাস্ক ব্যবহারের ফলে আপনি যদি আক্রান্ত হয়ে থাকেন বা আক্রান্ত কিন্তু অবগত না হয়ে থাকেন তবে আপনার দ্বারা অন্যরা সংক্রমিত হবেন না। 

প্রয়োজন হলে ঘরেই থাকুন  

  • অসুস্থ বা যারা কভিড – ১৯ ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন তাদের অবশ্যই গণপরিবহন এড়িয়ে চলা এবং ঘরে থাকা উত্তম।

পর্যাপ্ত পরিমাণে সাথে রাখুন

  •  যাত্রার সময় অবশ্যই সাথে ৬০% অ্যালকোহল যুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার সঙ্গে রাখুন যদি গন্তব্যে পৌঁছে সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা না থাকে। বাসে বা ট্রেনে উঠার সময় অথবা ঘরের লোক ব্যতীত বাইরের কারও সাথে যদি ব্যক্তিগত পরিবহণে যেতে হয় তবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব নাও হতে পারে তাই মাস্ক ব্যবহার করুন। 

অধিক সংক্রমণের ঝুঁকিযুক্ত ব্যক্তিদের রক্ষা করুন 

  • অসুস্থ বা যাদের কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি তারা যথাসম্ভব বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন অথবা যাত্রা সীমিত করুন। 
  • যদি আপনি একা যাত্রা করতে সক্ষম না হন অর্থাৎ আপনার যদি হুইলচেয়ার ব্যবহার করতে হয় তবে বাড়ির কাউকে সাথে রাখুন। 

গণপরিবহনে যাত্রার সময় করণীয় 

 পৃষ্ঠতল স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন 

  • বারবার স্পর্শ করা পৃষ্ঠতল যেমন- কিওস্ক, ডিজিটাল স্ক্রিন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার, লিফটের বাটন, ইলিভেটরের বেল্ট, বাসের হাতল, রেইল, বসার স্থানের পৃষ্ঠ ইত্যাদি স্পর্শ করা থেকে যথাসম্ভব বিরত থাকুন।
    • যদি একান্তই স্পর্শ করা লাগে যতদ্রুত সম্ভব নির্দেশিত উপায়ে হাত স্যানিটাইজ করুন। 
  • সবসময় স্পর্শবিহীন লেনদেন, ডাস্টবিন এবং হাতল স্পর্শ বিহীন দরজা ব্যবহারের চেষ্টা করুন। ক্রেডিট কার্ড এবং অন্যান্য কার্ড বা টিকেট সরাসরি অন্যের হাতে না দিয়ে ঝুড়ির সাহায্যে বা কাউন্টারের উপর রেখে দিন (সম্ভব হলে)। 

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন 

  • অফ- পিক অর্থাৎ যে সময়ে লোকজন কম থাকে সে সময় যাত্রা করার চেষ্টা করুন।
  • ঘরের লোকজন ব্যতীত সবার সাথে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। যেমন- 
    • দলে দলে জড়ো হওয়া এড়িয়ে চলুন এবং যখন সম্ভব হয় তখন ভিড় জায়গাগুলি এড়িয়ে চলুন, বিশেষত স্টপেজগুলিতে।
    • সম্ভব হলে নিজের এবং অন্যান্য যাত্রীদের মধ্যে এক সারি বাদ দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করুন।
    • ভিড় এড়াতে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা (যদি থাকে) তবে তা অবশ্যই মেনে চলুন। 

হাতকে পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ রাখুন

  • বাস স্টপেজ ছেড়ে বাসে উঠার পর হাত স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করুন।
  • গন্তব্যে পৌঁছে সাবান পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নিন। 

রাইড শেয়ারিং বা ভাড়ায় চালিত যানবাহনের ক্ষেত্রে করণীয় 

  পৃষ্ঠতল স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন  

  • ড্রাইভার এবং যাত্রী দ্বারা বারবার স্পর্শকৃত স্থানসমূহ যেমন- জানালা, দরজার হাতল, বসার সিট ও অন্যান্য জায়গা স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন সম্ভব না হলে স্পর্শ করার পর যত দ্রুত সম্ভব হাত স্যানিটাইজ করুন। 
  • স্পর্শ ব্যতীত ভাড়া দেওয়ার অপশন থাকলে তা গ্রহণ করুন। 
  • স্টপেজে থাকা ম্যাগাজিন, পানির বোতল বা বাইরের খাবার ইত্যাদি স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন। 
  • বাইকের ক্ষেত্রে ডিসইনফেকটেন্ট ওয়াইপ দিয়ে অন্যের স্পর্শ করা ব্যবহৃত স্থানগুলো মুছে নিন।

পর্যাপ্ত বায়ুসঞ্চালনের ব্যবস্থা করুন  

  • সম্ভব হলে ড্রাইভারকে গাড়ীর বায়ুচলাচল উন্নত করতে বলুন – উদাহরণস্বরূপ, জানালা গুলি খোলার মাধ্যমে বা নন-রিসার্কুলেশন মোডে শীতাতপনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা চালু করুন।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন

  • যানবাহনে সীমিত যাত্রী পরিবহণ করুন।
  • গাদাগাদি করে যানবাহনে উঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • তুলনামূলক ফাঁকা স্থান নির্বাচন করে বসুন।   

হাতকে পরিচ্ছন্ন ও নিরাপদ রাখুন

  • যানবাহন পরিত্যাগের পর হাত স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করুন।
  • গন্তব্যে পৌঁছে সাবান পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নিন। 

নিজস্ব পরিবহণে যাত্রায় করণীয় 

 পৃষ্ঠতল পরিষ্কার ও জীবাণূমুক্ত করুন 

  • নিয়মিতভাবে স্পর্শ করা পৃষ্ঠগুলিকে পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত করুন (উদাহরণস্বরূপ, স্টিয়ারিং হুইল, গিয়ার শিফট, ডোর ফ্রেম / হ্যান্ডলগুলি, উইন্ডোজ, রেডিও / তাপমাত্রার ডায়ালগুলি এবং সিটবেল্ট বাকলগুলি)। 
  • পার্কিং মিটার এবং পে স্টেশনগুলি ব্যবহার করার সময়, পৃষ্ঠতল জীবাণুমুক্ত করার জন্য অ্যালকোহলের ওয়াইপ ব্যবহার করুন বা ব্যবহারের পরে কমপক্ষে 60% অ্যালকোহলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কমপক্ষে ২০ সেকেন্ডের জন্য সাবান এবং পানিদিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন। 

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন

  • যানবাহনের যাত্রীদের সংখ্যা কেবলমাত্র প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার বিষয়টি বিবেচনা করুন (উদাহরণস্বরূপ, পরিবারের এক বা দু জন সদস্য বেছে নিন যাঁরা গুরুতর অসুস্থতার ঝুঁকিতে নন, প্রয়োজনীয় কাজগুলি চালানোর জন্য)। 

পর্যাপ্ত বায়ুসঞ্চালনের ব্যবস্থা করুন  

  • গাড়ীর পর্যাপ্ত বায়ুসঞ্চালনের ব্যবস্থা করুন  – উদাহরণস্বরূপ, জানালাখোলা রাখা বা নন-রিসার্কুলেশন মোডে শীতাতপনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা চালু করা ।

যেহেতু লকডাউন এখন অনেটাই শিথিল এবং আমাদের কাজে বের হতে হচ্ছেই সেহেতু নিজের নিরাপত্তার দায়িত্ব কিন্তু আমাদের নিজেদেরই। সুস্থ ও নিরাপদে থাকতে মায়া অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিজেকে আপডেটেড রাখুন। তথ্যসুত্র- সি ডি সি

Leave a Reply