কোয়ারেন্টাইনের সময় দাম্পত্য সম্পর্ক - মায়া

কোয়ারেন্টাইনের সময় দাম্পত্য সম্পর্ক

  • কোয়ারেন্টাইনের সময় যখন একটি দম্পতিকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য একসাথে একই ঘরে আবদ্ধ থাকতে হচ্ছে তখন সম্পর্কের বোঝাপড়াটা স্বাভাবিক সময়ের থেকে ভিন্ন
  •  বিশেষত যখন একান্ত প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে বের হতে পারছে না তখন অনেকেরই সম্পর্কের টানাপোড়ন শুরু হয়েছে
  • মায়ার মনোসামাজিক বিশেষজ্ঞের মতে এ সময় সম্পর্কগুলো সুন্দরভাবে পরিচালনা করার জন্য আপনি নিচের কিছু টিপস অনুসরণ করে দেখতে পারেন

নিজের জন্য সময় নির্বাচন: সারাদিনের মধ্যে কিছু সময় আপনি নিজের জন্য ব্যয় করুন। খেয়াল রাখবেন যেন আপনার পার্টনার তার নিজস্ব কিছু সময় কাটাতে পারে। এসময়টুকু নিজেকে মানসিক ও শারীরিক শক্তি যোগাতে সাহায্য করবে। 

কর্মপরিকল্পনা তৈরি: দুজনে একসাথে বসে একটি রাফ কর্মপরিকল্পনা তৈরি করুন এতে দুজনেরই ঘরে বসে অফিস, বাসার কাজ এগুলো নির্বিঘ্নে করা সহজ হয়ে যাবে। কাজের সময় নিরবতা এবং বাঁধা দেওয়ার বিষয়ে একটি সাধারণ গাইডলাইন তৈরি করতে পারেন। 

খোলা বাতাসে কিছুক্ষণ: শরীর এবং মনকে প্রফুল্ল রাখতে খোলা বাতাসের কোন বিকল্প নেই। সম্ভব হলে বাসার ছাদে, বেলকনিতে, বাসার নিচে খোলা বাতাসে কিছুক্ষণ কাটানোর চেষ্টা করুন। 

প্রিয়জনদের সাথে সময় কাটান: এমন পরিস্থিতিতে হয়ত প্রিয়জনদের স্পর্শ করা বা কাছে যাওয়া নিরাপদ না তাই অনলাইনেই তাদের সাথে কথা বলুন, দেখুন, নিজের মনের কথাগুলো শেয়ার করুন। একে অপরের খোঁজ খবর রাখুন। 

যোগাযোগের উপায় খুঁজে বের করা: যখন একসাথে ২৪/৭ কাটাচ্ছেন তখন একে অপরের সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে আরও বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। একে অপরের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া, অন্যকে ছোট না করা বা লজ্জায় না ফেলান ইত্যাদি আচরণ আমাদের রপ্ত করতে হবে। আমরা সবসময় হয়ত ভাল থাকতে পারব না, নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারব না মাঝে মাঝে কিন্তু সবসময় ই নিজেকে এবং একে অপরকে অনুগ্রহ করতে শিখতে হবে। 

সময়ের সদ্ব্যবহার: যান্ত্রিক জীবনের ব্যস্ততায় অনেক দম্পতিই হয়ত একে অপরের সাথে খুব কম সময় কাটাতে পারেন। এখন যেহেতু এক সাথে কাটানোর মত অফুরন্ত সময় পেয়েছেন সেহেতু এর উত্তম ব্যবহার করুন। আপনারা যা করতে পারেন- 

  • একসাথে ইনডোর খেলাধুলা বা ব্যায়াম করা
  • একে অপরকে ভালভাবে জানুন
  • নিজেরা একসাথে যে কাজগুলো ঘরে বসে করার আশা করতেন সেগুলো করুন
  • নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক 
  • নিজেদের বাসাকে নতুন করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা, সাজানো ইত্যাদি 

সর্বোপরি এই চরম অনিশ্চয়তার সময়টি একে অপরকে আরও বেশি ভালবাসুন।নিজেদের মানসিক দূরত্ব কমিয়ে আরও কাছে আসুন। এই কঠিন সময়গুলোতে মায়া সবসময় আপনার পাশে রয়েছে। মানসিক যেকোন জটিলতায় মায়ার মনো সামাজিক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন অথবা আমাদের হটলাইনে কল করুন।      

Leave a Reply