করোনায় বাজার থেকে কিনে আনা খাবার জীবাণুমুক্ত করার নিয়ম - মায়া

করোনায় বাজার থেকে কিনে আনা খাবার জীবাণুমুক্ত করার নিয়ম

বর্তমানে নিরাপদ খাদ্য আমাদের বেঁচে থাকার জন্য সবচেয়ে জরুরী। খাদ্য যদি নিরাপদ না হয় আপনার স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকেই যাবে। সুস্থ থাকতে নিরাপদ খাদ্যের কোন বিকল্প নেই।

  • কোভিড-১৯ এর কারণ হিসাবে তৈরি ভাইরাসটি নির্দিষ্ট পৃষ্ঠে ৭২ ঘন্টা অবধি জীবিত থাকতে পারে।
  • নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য দোকান থেকে কেনার সময় এবং কিনে আনার পরও আপনাকে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ সংক্রমন থেকে বাঁচার জন্য। 
  • বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এই সাধারণ পদক্ষেপগুলি আপনাকে সুরক্ষিত রাখতে পারে। 

নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যগুলো বাজার থেকে আনা থেকে শুরু করে রান্না করা পর্যন্ত আপনাকে কিছু সাধারণ পদক্ষেপ নিতে হবে এগুলোকে নিরাপদ করার জন্য। কারণ নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিনের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে যে ভাইরাসটি প্লাস্টিকের এবং স্টেইনলেস স্টিলের উপর ৭২ ঘন্টা পর্যন্ত এবং  ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত কার্ডবোর্ডের উপর জীবিত থাকতে পারে।

খুব প্রয়োজন ছাড়া যেমন আপনি বাইরে যাবেন না, তেমনি নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের জন্য আমাদের বাইরে না যেয়েও উপায় নেই। তাই আসুন কি বাজারে যাওয়া থেকে শুরু করে রান্না পর্যন্ত ধাপে ধাপে কিভাবে আমরা আমাদের পণ্যগুলোকে নিরাপদ করতে পারি তা জেনে নেই- 

  •  বাজারে যেয়ে যথাসম্ভব কোন কম পণ্য স্পর্শ করে বাজার শেষ করুন। যেটি কিনবেন শুধুমাত্র সেটিই পরখ করুন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। 
  • সুপার শপে গেলে প্রথমেই ট্রলির হ্যান্ডলটি জীবাণুমুক্ত করে নিন।
  • অন্য ব্যক্তির সাথে ৬ ফিট দূরত্ব বজায় রেখে বাজার সারুন। অন্য কেউ যদি অসতর্ক হয়ে কাছাকাছি চলে এসে তাকে বুঝিয়ে বলুন। 
  • আপনার স্পর্শ করা সবগুলো পণ্যই আপনার পূর্বে অন্য ব্যক্তি স্পর্শ করেছে ধরে নিতে পারেন।
  • বাজার শেষে ঘরে প্রবেশের পূর্বে অপচনশীল দ্রব্যগুলো আপনি গাড়ির গ্যারেজ বা বাইরে কোথাও ৭২ ঘণ্টা রেখে দিতে পারেন ভাইরাসমুক্ত করার জন্য।
  • বাজার করা পণ্য নিয়ে ঘরের কোন কিছু স্পর্শ না করে একটি জায়গায় রেখে প্রথমেই নিজের হাত সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • অপচনশীল দ্রব্যগুলো ঘরের যেখানে কেউ স্পর্শ করবে না এমন একটি জায়গায় সংরক্ষণ করে রাখুন ৭২ ঘণ্টার জন্য।   
  • পচনশীল দ্রব্যগুলো যেমন ফলমূল, শাক সবজি পানির নল ছেড়ে রেখে কিছুক্ষণ এর নিচে রেখে দিন। এরপর পরিষ্কার শুকনো একটি জীবাণুমুক্ত কাপড় দিয়ে মুছে ফ্রিজে রাখুন। 
  • অনেকে অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে সাবান পানি দিয়ে শাকসবজি ধুচ্ছেন কিন্তু আমেরিকান ফুড এন্ড ড্রাগ এসোসিয়েশন (এফ ডি এ) এটি করতে পরামর্শ দিচ্ছে না যেহেতু এটি খাদ্যদ্রব্য। তারপরও যদি কেউ এটি করেন তবে অবশ্যই খুব ভালভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।  
  • অপচনশীল  দ্রব্যগুলো যদি ৭২ ঘণ্টা ফেলে রাখা সম্ভব না হয় তবে এর প্যাকেটগুলো জীবানণুমুক্ত করন দ্রবণ দিয়ে ভিজিয়ে নেওয়া কাপড় দিয়ে মুছে নিয়ে প্যাকেট ছিড়ে ঘরের পরিষ্কার পাত্রে রেখে দিতে হবে। 
  • পাউরুটি,বিস্কুট এগুলো ও অনুরুপভাবে  প্যাকেট থেকে বের করে বাসার শুকনো ও পরিষ্কার পাত্রে সংরক্ষণ করতে হবে। 
  • রেফ্রিজারেটরে পণ্য রাখার সময় জীপ লক ব্যাগে ভরে সংরক্ষণ করুন। 
  • সংরক্ষণ প্রক্রিয়া শেষ করে যে স্থানে পণ্যগুলো রেখেছিলেন সে স্থানটি ভালভাবে জীবাণূমুক্ত করণ দ্রবণ দিয়ে মুছে ফেলুন। 
  • বাজারের ব্যাগটি পুনরায় ব্যবহার করতে হলে সাবান এবং গরম পানি দিয়ে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রেখে ধুয়ে কড়া রোদে শুকিয়ে নিন। 
  • সবশেষে নিজের হাতটিও ভাল মত ২০ সেকেন্ড সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। বাজার করার পোশাকটি সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। সম্ভব হলে পুরো শরীরে (মাথার চুল সহ) সাবান দিয়ে গোসল করে নিন। 

সবশেষে বলব, সুস্থ থাকতে এসময় পরিমিত খাওয়া দাওয়া করুন। নিয়মিত ব্যায়াম করে নিজের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলুন। অসুস্থ হলে মায়াতে প্রশ্ন করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।       

Leave a Reply