গর্ভাবস্থায় সহবাস কি নিরাপদ?

গর্ভধারণ একজন নারী তথা পরিবারের সদস্যদের জন্য একটি অতীব গুরুত্বপুর্ণ ঘটনা। তথাপি গর্ভাবস্থায় বা গর্ভধারণের আগে অনেকেরই মনে একটি প্রশ্ন জাগে তা হল আমরা কি গর্ভাবস্থায় যৌন মিলন করতে পারব? অধিকাংশ লোক ই এই বিষয়ে দ্বিধানিত্ব থাকেন আবার এই বিষয়টি নিয়ে সমাজে অনেক ভুল ধারণা ও প্রচলিত রয়েছে।অনেকে লোক লজ্জার ভয়ে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন না কিন্তু ভুল ধারণা পোষণ করে থাকেন। 

মায়ার প্লাটফর্মে প্রায়শই এ সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশ্ন এসে থাকে। আমাদের একজন গ্রাহক শাম্মী ( ছদ্মনাম) মায়াতে প্রশ্ন করেন যে “ আপা আমি এখন ২ মাসের প্রেগন্যান্ট আমি যদি এখন সহবাস করি তাহলে কি আমার কোন ঔষধ খাওয়া লাগবে?” 

মায়ার আরও একজন গ্রাহক রফিক (ছদ্মনাম) প্রশ্ন করেছেন যে- বউ যদি প্রেগন্যান্ট হয় তবে গর্ভাবস্থার  তিনমাসের মধ্যে কি আমরা সহবাস করতে পারব?”  

এসব প্রশ্নের সমাধান বা পরামর্শ দিয়েছেন মায়ার মেডিক্যাল এক্সপার্ট ডাঃসাদিয়া ইসলাম। তিনি বলেন- গর্ভাবস্থায় সহবাস করা যাবে।তবে,এক্ষেত্রে কিছু বিষয় বিবেচনায় রাখতে হবে যেমনঃ-  বর্তমান প্রেগন্যান্সি সময়ে কোন জটিলতা আছে কিনা, পূর্ববর্তী গর্ভধারনে এবং গর্ভকালীন কোন জটিলতা ছিল কিনা, গর্ভপাত হওয়ার ইতিহাস আছে কিনা, গাইনী ডাক্তারের নিষেধাজ্ঞা আছে কিনা ইত্যাদি।যাদের এরূপ সমস্যাগুলোর ইতিহাস রয়েছে তাদের কারও কারও ক্ষেত্রে গর্ভকালীন প্রথম তিন মাস বিশেষ সতর্কতার অংশ হিসেবে সহবাস থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে।     

যদি এসব বিষয়গুলোর কোনটি উপস্থিত না থাকে সেক্ষেত্রে, দুইজন সঙ্গীর সহমতে গর্ভাবস্থায় সহবাস করা যাবে। অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, সহবাসের ফলে গর্ভের ভ্রূণের কোন ক্ষতি হবার সম্ভাবনা রয়েছে কিনা। এর উত্তর দিতে গিয়ে তিনি বলেন-  গর্ভকালীন অবস্থায় মায়ের গর্ভে শিশু একটি পানির থলের ভেতর সুরক্ষিত থাকে এবং মায়ের জরায়ুর মাংসপেশি, জরায়ুর মুখের মিউকাস এগুলো ভ্রূণকে সুরক্ষিত রাখতে সাহায্য করে। 

তবে,গর্ভাবস্থার শেষ দিকে সহবাস না করাই উত্তম। এক্ষেত্রে ডাঃ সাদিয়া ইসলামের পরামর্শ হল  গর্ভকালীন চেক আপের সময় আপনার গাইনী ডাক্তার যিনি আপনার গর্ভাবস্থার সঠিক অবস্থাটি সবচেয়ে ভাল অবগত আছেন তার কাছ থেকে সহবাস করা যাবে কিনা এ বিষয়ে সংকোচ না করে জেনে নেওয়া, কারন ব্যাক্তিভেদে শারীরিক অবস্থা যাচাই করে এ পরামর্শ ভিন্নরকম হতে পারে।আর,যৌন মিলনের সময় অবশ্যই  কনডম ব্যবহার করা উচিত, এতে যৌন বাহিত রোগ সংক্রমন হবার ভয় থাকে না।  

তিনি সাবধান করেন এই বলে যে- যৌন মিলনের সময় যদি কোন রক্তপাত, ব্যাথা বা কোন সমস্যা মনে হয় তবে অবশ্যই দ্রুত আপনার ডাক্তারের শরণাপন্ন হন।

বিশেষ কিছু ক্ষেএে  যেমন—জমজ বাচ্চা থাকলে ,আগে miscarriage বা গর্ভপাত হয়ে থাকলে,আগের pre term labour,যে কোন ব্লিডিং, প্লাসেন্টা যদি ইউটেরাসের নীচে অবস্থান করে (placenta praevia) অবশ্যই সহবাস থেকে বিরত থাকতে হবে।   

গর্ভাবস্থায়, নানারকম ভুল ধারণার বশবর্তী হয়ে আমাদের সমাজে গর্ভবতী ও অনাগত সন্তান উভয়কেই অনেক সময় শারীরিক কিংবা মানসিক ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া হয় যা মোটেও উচিৎ নয়। গর্ভকালীন যেকোন সমস্যার সমাধান জানতে বা পরামর্শের জন্য মায়া ইন্সটল করে প্রশ্ন করুন নির্দ্বিধায় ও নিঃসঙ্কোচে। আপনার শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সকল সমস্যায় পাশে রয়েছে মায়া।        

Leave a Reply