তীব্র মাসিকের যন্ত্রণা উপশমের ঘরোয়া উপায়

মাসিকের সময় তীব্র যন্ত্রণা অনেক মেয়ের জীবনেই নিয়ে আসে ভয়াবহ অভিজ্ঞতা। এসময় বা কারও কারও ক্ষেত্রে তার দু একদিন আগে থেকেই তীব্র তলপেটে ব্যাথা, হাটু ,পা, কোমর এবং মাথা ব্যাথাতে ভুগতে দেখা যায়। এ যন্ত্রণা যে কতটা কষ্টের ও অস্বস্তির তা যে এই অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে যায় নি তার পক্ষে বোঝা খুব মুশকিল। অনেকেই এই  অস্বস্তি থেকে মুক্তি পেতে ব্যাথানাশক ঔষধ খেয়ে থাকেন যা দীর্ঘদিন খেলে স্বাস্থ্য ঝুঁকির সম্ভাবনা রয়েছে। 

ছবিসূত্রঃ হিন্দুস্থান টাইমস 
চলুন জেনে নেই ব্যাথার তীব্রতা উপশমের কিছু টিপসঃ 
উষ্ণতাঃ উষ্ণতা ব্যথার তীব্রতা উপশমের একটি বড় উপায়। তলপেটে হট ওয়াটার ব্যাগ এ গরম পানি ভরে এর উপর কাপড় পেঁচিয়ে সহ্য করার মত উষ্ণতা দিতে হবে। এছাড়াও কুসুম গরম পানিতে হালকা গোলাপ জল বা লেবূ মিশিয়ে গোসল করলে আপনার ক্লান্তি যেমন দূর হবে ব্যাথা এবং অস্বস্তিও কমে যাবে। 
হারবাল চাঃ 
এসময় হারবাল চায়ের উষ্ণতা আপনাকে স্বস্তি দিতে পারে। উষ্ণ চা মাংসপেশীকে আরাম দিতে সাহায্য করে। তবে দুধ চা বা কফি না খেয়ে  যে সমস্ত চা এ ক্যাফেইন কম সেসব হারবাল চা যেমনঃ আদা চা, জেসমিন চা, তুলসী চা, গ্রীণ টি ইত্যাদি খাওয়া উচিৎ। 
যোগব্যায়াম ও ম্যাসাজঃ
নিয়মিত হালকা যোগব্যায়াম ও ম্যাসাজ আপনাকে আরাম দিতে পারে।ব্যায়ামের মধ্যে একটি হল  শিশুদের হামাগুড়ি দেওয়ার মতো করে নিতম্ব পায়ের গোড়ালিতে রেখে কপাল রাখুন মেঝেতে এবং হাতদুটো সামনের দিকে সোজা করে ৩০ সেকেন্ড রাখুন৷ এছাড়াও এসেনশিয়াল ওয়েল ও হারবাল কিছু তেলের হালকা ম্যাসাজ আপনাকে আরাম দিতে পারে।  
প্রচুর পানি পান ও নিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাসঃ 
যেহেতু এসময় শরীর থেকে নানারকম ফ্লুয়িড বেরিয়ে যায় সেহেতু প্রচুর পরিমাণে পানি পান শরীরের ফ্লুয়িড ব্যাল্যান্স ঠিক রেখে আপনাকে স্বস্তি দিতে সাহায্য করবে।এ সময় অধিক তেল চর্বি যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন। 
 আদা ও দারচিনিঃ           
মাসিকের ব্যাথা উপশমে আদা ও দারচিনি খূব কার্যকরী।  ব্যথা উদ্রেককারী PROSTAGLANDINS নিয়ন্ত্রণে রাখে আদা। এর সঙ্গে অবসাদ দূর করতেও সহায়তা করে। এক কাপ গরম পানিতে এক টুকরা আদা ছেঁচে তার সঙ্গে সামান্য মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারেন।
দারুচিনিতে রয়েছে  ফাইবার, ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ম্যাঙ্গানিজ। এক টেবিল চামচ দারুচিনি গুঁড়ো চায়ের সঙ্গে মিশিয়ে ৫ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এতে সামান্য মধু মিশিয়ে খেয়ে দেখুন উপকার পাবেন। 
অর্গাজমঃ
অর্গাজম বা আনন্দময় যৌনতার পিরিয়ডের ব্যথা উপশমের অন্যতম উপায়। এজন্য দেখা যায় বিয়ের পর অনেকেরই এই অসহ্য যন্ত্রণা কমে যায় কারণ অর্গাজমের ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় এবং শরীরে নানারকম হরমোনাল সিক্রেশন হয়। 
সবশেষে, মাসিকের সময় সবসময় স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারের চেষ্টা করুন এবং প্রতি ছয় ঘণ্টা পর পর তা বদলিয়ে ফেলুন। পরিষ্কার, পরিচ্ছন্ন থাকুন এবং  মাসিকের যে কোন ধরণের সমস্যায় লজ্জা পেয়ে লুকিয়ে না রেখে নির্দ্বিধায় খূলে বলুন মায়ার এক্সপার্টদের এবং পরামর্শ নিন আপনার পরিচয় গোপন রেখেই। আপনার যন্ত্রণায় স্বস্তি দিতে মায়া সবসময় আপনাদের পাশেই রয়েছে।       

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Categories