এই রোজায় ও গরমে ফিটনেস

রোজার সময় আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক পরিবর্তন দেখা যায়। এসব পরিবর্তনের মধ্যে নিজেকে সুস্থ রাখতে ব্যায়াম খুব গুরুত্বপূর্ণ। আবার অনেকে মনে করে সারাবেলা কোনো খাবার ও পানি না খেয়ে কিভাবে ব্যায়াম করা যায়?  আবার এই রোজায় তো অনেক গরমও পড়েছে। তাহলে কিভাবে এই রোজায় ব্যায়াম করে সুস্থ থাকা যায়?
 
প্রথমত জানতে হবে কোন সময়টাতে কি ব্যায়াম করা যাবে:
 
১) রোজায় সকালে ভারী ব্যায়াম না করাই ভালো। যেমন, ওজন তোলা অথবা দৌড়ানো।  কেননা কেউ যদি সকালে ভারী ব্যায়াম করে তাহলে পানি শুন্যতা দেখা দেয়। যার ফলে কিডনি রোগের সম্ভবনা দেখা দিতে পারে। সকালে  ইয়োগা, হাঁটা, মেডিটেশনের মত হালকা ব্যায়াম করতে পারেন।
২) যদি আপনি ভারী ব্যায়াম করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে তা ইফতারের পরে করতে হবে।  ইফতারের পরে একটু বিশ্রাম নিয়ে ব্যায়াম করতে যেতে পারেন।
 
আপনি যদি রোজার মাসে নিয়মিত ব্যায়াম করতে চান তাহলে অবশ্যই খাবারের প্রতি খেয়াল রাখবেন। যে বিষয়গুলো এসময়ে মনে রাখা দরকার তা হলো:
 
১) ইফতারে তৈলাক্ত খাবার একদম খাওয়া যাবে না
২) ইফতারের পরে থেকে সেহেরি পর্যন্ত ৩-৪ লিটার পানি খেতে হবে
৩) ডাবের পানি, ডিম, কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার শরীরে তাড়াতাড়ি শক্তি যোগায়, এইজন্য মাঝে মাঝে  কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার খাওয়া উচিত।
৪) রাতে ভাত, চিকেন/ফিশ, ভেজিটেবলে জাতীয় খাবার পরিমান মতো খেতে হবে।  
৫) সেহেরীতে কিছু না খেয়ে থাকবেন না। এতে খুব দুর্বল বোধ হবে।  
 
এই নিয়মগুলো মেনে আপনি রোজার সময়েও আপনার ফিটনেস ধরে রাখতে পারবেন। রোজার সময় মায়ার সাথে থাকুন, সুস্থ থাকুন।
ছবিসূত্রঃ ইন্টারনেট
 
***মায়ার সাথে থাকুন, সুস্থ থাকুন***
শারীরিক, মানসিক, লাইফস্টাইল বিষয়ক সমস্যায় প্রশ্ন করুন Maya অ্যাপ থেকে।
অ্যাপের ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://bit.ly/2WkzaYR

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Categories