রোদের তাপ থেকে সুরক্ষা কেন জরুরি

রোদের তাপ থেকে সুরক্ষা কেন জরুরি
সূর্য যেমন ভিটামিন ডি এর উৎস, তেমনি ত্বকের ক্যান্সারেরও কারণ। সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মির কারণে ত্বকের যে ক্ষতি হয় তার থেকেই ত্বকে ক্যান্সার হয়। রোদের তাপ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারলে ত্বকের ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।


সূর্যের তাপ কীভাবে ত্বকের ক্ষতি করে?
সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি ত্বকের অনেক গভীরে ঢুকে পরে এবং ত্বকের কোষগুলোকে নষ্ট করে দেয়। এসব কোষের ক্যান্সারপ্রবণ হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে। ত্বকে অতিবেগুনী রশ্মির ক্রিয়া আপনি হয়তো টেরও পাবেন না এবং রোদের উত্তাপ খুব বেশি না থাকলেও এই ক্রিয়া চলতে পারে। রোদের তাপে ত্বক পুড়ে যাওয়ার ফলে ত্বকের ওপরের স্তর থেকে একধরণের রাসায়নিক পদার্থ নির্গত হয় যার ফলে রক্ত কণিকাগুলো ফুলে যায় এবং এক ধরণের তরল নির্গত করে। এতে করে ত্বক লাল হয়ে যায় এবং অনেক সময় গরম লাগে ও ব্যাথাও করে। ত্বক অতিরিক্ত পুড়ে গেলে অনেক সময় ফুলে যায় ও ফোস্কা পড়ে।

রোদের তাপে ত্বক পুড়ে যাওয়া যে কোনো বয়সের জন্যই ক্ষতিকর, বিশেষ করে বাচ্চা ও তরুণ বয়সীদের জন্য। শৈশবে ত্বক পুড়ে গেলে বড় হবার পর ত্বকের ক্যান্সার হবার ঝুঁকি থাকে। পোড়া ত্বকের মরা কোষগুলো একসময় উঠে উঠে যেতে থাকে। এটা সেরে গিয়ে আপনার ত্বক আবার সুস্থ আর সুন্দর দেখাবে ঠিকই, কিন্তু স্থায়ী ক্ষতি যা হবার তা হয়তো ইতিমধ্যেই হয়ে গেছে। সাধারণত গাঢ় বর্ণের মানুষদের ত্বকের ক্যান্সার হবার ঝুঁকি কম থাকে, কারণ তাদের ত্বক নিজে থেকেই সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। কিন্তু তারপরও, ঝুঁকি তো থেকেই যায়।

সূর্যতাপের প্রখরতার কারণে আপনি তাড়াতাড়ি বুড়িয়েও যেতে পারেন। চেহারায় বার্ধক্যের ছাপ পড়ার ৮০% কারণই হচ্ছে সূর্যের প্রখর তাপে বেশিক্ষণ থাকার ফল। সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি কোলাজেন-কে ভেঙ্গে দেয় এবং নতুন কোলাজেন তৈরি হওয়াকে প্রতিহত করে। এর ফলে ত্বক আলগা হয়ে যায়, ভাঁজ পড়ে এবং ক্ষেত্রবিশেষে শক্ত হয়ে যায়।


প্রখর রোদেও কীভাবে সুরক্ষিত থাকবেন ?
এমন নয় যে আপনি ছুটিতে কক্সবাজারে সমুদ্রস্নানে গেলেন আর তখনই আপনার ত্বক পুড়ে যাবে। যেকোনো সময়েই এটা হতে পারে, আপনি হয়তো টেরও পাবেন না, যেমন আপনি হয়তো কোথাও হাঁটতে বের হলেন কিংবা অফিস থেকে বের হয়ে একটু হেঁটে গাড়ির কাছে গেলেন, এর মধ্যে ত্বকের যে কোন ক্ষতি সাধন হতে পারে। রোদের তাপ থেকে সুরক্ষা এমন একটা জিনিস যেটা আপনাকে প্রতিদিনই মাথায় রাখতে হবে। কোথাও ছুটি কাটাতেই যান আর বাসাতেই থাকুন, নিচের সান-স্মার্ট পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করলেই কিন্তু আপনি রোদের তাপ থেকে সুরক্ষিত হতে পারেন –

  • সকাল ১০টা থেকে ৩টা পর্যন্ত সময় ছায়াযুক্ত স্থানে থাকুন।
  • ত্বক যেন কখনো রোদে না পোড়ে ।
  • সানগ্লাস বা ছাতা ব্যবহার করে নিজেকে ঢেকে রাখুন।
  • বাচ্চাদের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত যত্ন নিন।

খেয়াল রাখুন, আপনার ত্বকে কোন দাগ পড়ে যাচ্ছে কি না, কিংবা ত্বকের স্বাভাবিক বিকাশ কোনভাবে ব্যাহত হচ্ছে কি না। বাচ্চাদের ত্বকের বিশেষ যত্ন নিন। সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে তাদেরকে সবসময় আবৃত রাখা এবং ১০টা থেকে ৩টার বিপদজনক সময়টিতে তাদের ছায়ায় রাখা।

মায়া বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে মায়া এন্ড্রয়েড এপ ডাউনলোড করুন এখান থেকে: https://bit.ly/2VVSeZa

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Categories