বয়স্কদের শীতকালীন ব্যথা উপশমে সাহায্য করার ৪ উপায় - মায়া

বয়স্কদের শীতকালীন ব্যথা উপশমে সাহায্য করার ৪ উপায়

শীতকাল মানেই বয়স্কদের জন্য নানা রকম ব্যথার উৎপাত। ঘোলা কিংবা কুয়াশাচ্ছন্ন আবহাওয়া যেমন কারও ভালো লাগে না, তেমনি বয়স্কদের জন্য শীতকালে এই বাড়তি ব্যথা, বেদনা সহ্য করা কঠিন হয়ে পড়ে।

বয়স্কদের শীতকালীন ব্যথা উপশমে সাহায্য করার জন্য যা করতে পারেন সে প্রসঙ্গে মায়ার এক্সপার্টদের পরামর্শ জেনে নিন –

১। বয়স্কদের শীতকালীন ব্যথা উপশমে তাদের গরম রাখার ব্যবস্থা করুন

শীতে গরম থাকাটা এটি সবার জন্যই প্রযোজ্য। তবে, সবার থেকে বয়স্কদের বিষয়টি একটু ভিন্ন।

তারা এমনিতে অন্যান্য বয়সীদের তুলনায় শরীরের তাপমাত্রা কম উৎপাদন করেন।

অন্যান্যরা যে তাপমাত্রায় গরমবোধ করবে বয়স্করা দিব্যি সে তাপমাত্রায় স্বাভাবিক বা আরামবোধ করবেন।

এজন্য, আপনার প্রিয়জনকে ঘরে এবং বাইরে আরামদায়ক তাপমাত্রায় রাখার ব্যবস্থা করুন।

কারণ, তারা যত বেশি ঠাণ্ডায় থাকবে তাদের শরীরের ব্যথাগুলো আরও বেশি অনুভব করবে।

একবারে একটি অনেক মোটা সোয়েটার বা গরম কাপড় না পরে কয়েক লেয়ারে কাপড় পরালে আরও বেশি ইনসুলেশনে থাকবেন এবং শরীরের তাপমাত্রা ধরে রাখতেও সহায়তা করবে।

যথেষ্ট গরম রাখার ব্যবস্থা করলে ব্যথা কম অনুভূত হবে। কারণ, গরমে পেশী এবং জয়েন্টসমূহ আরও বেশি ফ্লেক্সিবল এবং ব্যথামুক্ত থাকে।

২। উষ্ণপানিতে গোসলের ব্যবস্থা

বয়স্কদের উষ্ণ এবং আরামদায়ক পানিতে গোসল করলে বা স্টীম বাথ করার ব্যবস্থা থাকলে ব্যথা উপশম হয়।

বয়স্করা যদি সম্ভব হয় উষ্ণ পানিতে সাঁতার কাটলে ব্যায়াম এবং ব্যথা উপশম দুটোই হয়।

এ সময় উষ্ণ পানিতে সাঁতার পেশী এবং জয়েন্ট সমূহ ফ্লেক্সিবল করার পাশাপাশি তাদের আরামে সহায়তা করে।

৩। হাইড্রেটেড থাকা নিশ্চিত করুন

আপনার বয়স্ক প্রিয়জন যেন পর্যাপ্ত পানি পান করেন সে বিষয়ে খেয়াল রাখুন। পানি সবার জন্য উপকারী হলেও বয়স্কদের জন্য বেশি উপকারি।

পানি বয়স্কদের জন্য লুব্রিকেন্টের মত কাজ করে। সহজভাবে বলতে গেলে পানি পর্যাপ্ত পরিমাণে পান বয়স্কদের ব্যথামুক্ত থাকতে সহায়তা করবে।

বয়স্করা অন্যান্যদের তুলনায় কম পিপাসাবোধ করেন। ফলে পানি কম খেয়ে বেশি পরিমাণে ডিহাইড্রেটেড হয়ে পড়েন। এসময়ে ডিহাইড্রেশন অনেক বেশি বিপদজনক।

ডিহাইড্রেশনের ফলে তারা ল্যাথার্জিক , ক্লান্তি ও ঘুম ঘুম বোধ করেন।

পানিশুন্যতার কারণে তাদের মাংসপেশীতে খিচুনি এবং জয়েন্ট এ ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

তাই, শীতকালে বয়স্কদের পর্যাপ্ত পানি পান নিশ্চিত করুন।

৪। প্রয়োজনে সাপ্লিমেন্ট সেবন

ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে বয়স্ক প্রিয়জনের খাদ্যতালিকায় দুটি জরুরী সাপ্লিমেন্ট যোগ করতে পারেন। এগুলো হল- ভিটামিন ডি এবং ফিশ অয়েল।

বয়স্করা এমনিতেই শীতকালে বা শারীরিক দুর্বলতার কারণে বাইরে বের হন না বলে রোদের অভাবে শরীরে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি দেখা যায়।

ভিটামিন ডি এর ঘাটতি এবং হাড়ক্ষয় ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এর অভাবে হাড় ক্ষয় এবং আরথ্রাইটিস এর ব্যথা বেড়ে যায় বলে গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে।

যাদের আগে থেকেই আরথ্রাইটিস রয়েছে তাদের জন্য ফিশ অয়েলে থাকা ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড খুব উপকারী। এটি ব্যথা উপশমে সহায়তা করে।

সবশেষে বলব, শীতের শুষ্কতা এবং ঠাণ্ডায় বয়স্কদের অসুবিধা হওয়াটা স্বাভাবিক। তার মানে এই নয় যে তাকে পুরোটা সময় ব্যথায় কাটিয়ে দিতে হবে।

আপনার একটু যত্ন এবং সচেতনতায় সে পার করতে পারে একটি তুলনামূলকভালো শীতকাল এবং উপভোগ করতে পারবে আগামী বসন্তটা।

প্রিয়জনের যে কোন সমস্যায় মায়াতে প্রশ্ন করে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। আরও নতুন নতুন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে নিয়মিত পড়ুন মায়া ব্লগ

Leave a Reply

Categories