শীতে চুলের যত্ন নেওয়ার ৯ টি উপায়: শুষ্ক ও ক্ষতিগ্রস্থ চুল - মায়া

শীতে চুলের যত্ন নেওয়ার ৯ টি উপায়: শুষ্ক ও ক্ষতিগ্রস্থ চুল

আর্টিক্যালটিতে যা থাকছে-

  • শীতে চুলের যত্ন নেওয়ার ৯ টি উপায়।

শীতের আবহাওয়া সমস্ত চুলের টেক্সচার এবং সব ধরণের চুলের জন্য ক্ষতিকর। ত্বকের মতোই চুলেরও নরম ও স্বাস্থ্যকর থাকতে ঠান্ডা থেকে সুরক্ষা প্রয়োজন।

যেকোন ধরনের ঠাণ্ডা বাতাস, স্থির বিদ্যুৎ এবং অতিরিক্ত তাপ থেকে চুলকে রক্ষা করুন।

শীতে চুলের যত্ন নেয়ার জন্য এই ১০ টি টিপস ব্যবহার করে দেখুন। নতুন নতুন বিষয়ে জানতে আমাদের ব্লগে চোখ রাখুন নিয়মিত।

শীতে চুলের যত্ন নেওয়ার ১০টি উপায়

১। হ্যাট বা টুপি পরুন

শীতকালে আপনার চুলগুলি আর্দ্রতা ছিনিয়ে নেওয়া শুষ্ক বাতাস, ধুলাবালি এবং বৃষ্টি থেকে রক্ষা করার জন্য ঢেকে রাখা জরুরী।

টুপির নিচে এলোমেলো চুল নিয়ে ভাবার সময় নয় এটি।এই উপাদানগুলি আপনার শুষ্ক চুল এবং ভঙ্গুর চুলের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ করে তোলে।

উল, সুতি এবং অন্যান্য কাপড়গুলিও ঘষা লেগে ভাঙ্গন সৃষ্টি করতে পারে, তাই ক্ষতি রোধ করতে আপনার টুপি, ওড়না বা চাদরের নিচে রেশম বা সাটিনের পরত বা ইনার ক্যাপ লাগিয়ে রাখুন।

শীতকালে চুলে ঘর্ষণের ফলে স্থির বিদ্যুৎ উৎপন্ন হয়।এটি প্রতিরোধে চুলে হালকা তেল স্প্রে করতে পারেন।

এতে চুলের ময়েশ্চারাইজিং এর কাজ হবে এবং চূলে চকচকে ভাব ফিরে আসবে।

২। নিয়মিত চুল ছাটুন

প্রতি চার থেকে আট সপ্তাহে আপনার চুল ছাঁটাই চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখা এবং আপনার লকগুলিকে সতেজ রাখার এক ভাল উপায়।

শুকনো, আগা ফাটা থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা কমাতে নীচ থেকে আধা ইঞ্চি ধরুন এবং ছেটে নিন।

৩। অতিরিক্ত গরম পানিতে চুল ধোয়া থেকে বিরত থাকুন

শীত বেশি পড়লে গোসল করাটা কষ্টকর হয়ে উঠে। তখন আমরা অনেকে হট শাওয়ার বা গরম পানি দিয়ে গোসল করি।

অতিরিক্ত গরম পানি দিয়ে চুল ধুলে চুলের আর্দ্রতা হারিয়ে যায়। চুল বেশি পরিমাণে রুক্ষ, শুষ্ক ও ভঙ্গুর হয়ে পড়ে।

হালকা গরম পানি দিয়ে চুল ধুলেও পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চুলটাকে আবার ধুয়ে নিন।

৪। তাপ দিয়ে স্টাইলিং করা এড়িয়ে চলুন

আপনার চুলকে বাতাসে শুকাতে দেওয়াই ভাল। ব্লো ড্রাই এর ফলে আপনার চুলের আর্দ্রতা কমে যায়। তাপ-মুক্ত শুকনো আপনার চুল চকচকে এবং স্বাস্থ্যকর রাখতে সহায়তা করে।
সময় এর অভাব? সন্ধ্যায় কাজ থেকে ফিরে গোসল করার চেষ্টা করুন যাতে আপনার চুলগুলি রাতারাতি প্রাকৃতিকভাবে শুকিয়ে যায়।
আপনার প্রাকৃতিক চুলকে ভালবাসুন এবং যখনই সম্ভব বাতাসে-শুকান। 
শীতকালে আপনার চুলগুলি ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে,তার উপর হিট স্টাইলিং সমস্যাটিকে আরও বাড়িয়ে তুলে।
শীতকালে চুল স্ট্রেটনার দিয়ে চুল সোজা বা কুঁচকানো থেকে বিরত থাকুন। এর পরিবর্তে বেনি,বান এর মতো নতুন স্টাইল অন্বেষণ করে দেখতে পারেন। 

৫। ভেজা চুল নিয়ে বাইরে যাবেন না

শুকনো চুলের চেয়ে ভেজা চুল ক্ষতির ঝুঁকিতে থাকে বেশি। ভেজা মাথা নিয়ে শীতে বাইরে হাঁটলে চুলে ধুলাবালি জমাট বাঁধতে পারে এবং ভেঙে যেতে পারে।

যদিও বাতাসে চুল শুকানো সর্বোত্তম, তবুও যদি একান্তই গোসল করার সাথে সাথে বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন হয় তবে চুল ব্লো ড্রাই করে যান।

৬। অয়েল ট্রিটমেন্ট

শীতে যখন আপনার চুলে সর্বনাশ হয় তখন অয়েল ট্রিটমেন্ট করে আর্দ্রতা পুনরুদ্ধার করতে পারেন।

তাৎক্ষণিক শুকনো, ক্ষতিগ্রস্থ চুলগুলিকে পুনরজ্জীবিত করতে আরগান অয়েলের সাথে হালকা লিভ-ওন টাইপ কন্ডিশনার মিশিয়ে লাগান।

আর্দ্রতা পরিপূর্ণ করতে এবং আপনার চুল সুরক্ষায় সহায়তার জন্য প্রতিদিন চুলের আগায় তেল প্রয়োগ করুন।

৭। সপ্তাহে একবার ডিপ কন্ডিশনিং করুন

ময়শ্চারাইজিং শীতের চুলের যত্নের জন্য জরুরী। আর্দ্রতা পরিপূর্ণ করতে এবং হট স্টাইলিং সরঞ্জাম, ইনডোর হিটিং এবং শীতকালীন বাতাসের প্রভাবগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাপ্তাহিক ছুটিতে ডিপ কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।

শুষ্ক ও খাড়া খাড়া চুল এ সময় খুব সাধারণ। কন্ডিশনার দিয়ে চুলকে হাইড্রেটেড রাখা এটি থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করবে।

৮। সপ্তাহে একবার হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করুন

স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য যেমন সাপ্তাহিক ফেস মাস্ক অপরিহার্য, তেমনি সাপ্তাহিক চুলের মাস্ক শুষ্ক, ক্ষতিগ্রস্থ চুলের ক্ষেত্রে একটি উল্লেখযোগ্য পার্থক্য আনতে পারে।

সারা বছর ধরে হালকা ও নিয়মিত যত্ন আপনার চুলকে স্বাস্থ্যজ্বল রাখে। চুলের মাস্কগুলি দ্রুত এবং সহজেই ব্যবহারযোগ্য।

এগুলি প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি যোগাতে এবং ২০ মিনিটের মধ্যে কার্যকর। চুলের মাস্ক চুলকে নরম, হাইড্রেট এবং চকচকে করতে সহায়তা করে।

৯।ঘন ঘন চুল ধোয়া এড়িয়ে চলুন

আপনি যদি এমন কেউ হন যারা প্রতিদিন চুল ধুয়ে থাকেন তবে এখন বিষয়গুলি স্যুইচ আপ করার সময় এসেছে।

অতিরিক্ত চুল ধোয়া আপনার প্রাকৃতিক তেলগুলি কেটে ফেলবে যা চুলকে ময়েশ্চারাইজ এবং সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করে।

শীতকালে এটি বিশেষত খারাপ হয় যখন এই তেলগুলির খুব প্রয়োজন হয়।আপনি যদি প্রতিদিন আপনার চুল ধোয়ার অভ্যাস থাকে তবে এক দিন পর পর শ্যাম্পু করুন।

আপনি যদি দেখতে পান যে আপনার চুলগুলি এখনও খুব শুষ্ক তবে প্রতি তিন দিন পর পর চেষ্টা করুন। আরেকটি উপায় হ’ল ড্রাই শ্যাম্পু ব্যবহার করা।

ড্রাই শ্যাম্পু চুলের জট খুলতে এবং আপনার চুলের স্টাইলে জীবন ফিরিয়ে আনবে। এটি ব্যবহারে আপনার চুল সুগন্ধ বের হবে এবং সতেজ দেখাবে।

শীতে চুলের যত্ন সংক্রান্ত যে কোন প্রশ্নের সমাধান জানতে মায়াতে প্রশ্ন করুন

Leave a Reply

Categories